অক্সফোর্ডের আঙ্গিনায় বাংলাদেশী কৃষি বিজ্ঞানী

0
359

সায়েম মোহাম্মদ মুজাহিদঃ বৈশ্বিক উষ্ণতা বৃদ্ধি ও জলবায়ু পরিবর্তনে যে কয়েকটি দেশ প্রবল ঝুঁকিতে রয়েছে তারমধ্যে বাংলাদেশ অন্যতম। ১৯৯৮-২০১৭ সালের জলবায়ু পরিবর্তন জনিত কারণে ক্ষতিগ্রস্ত দেশের তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান ৭ম। দেশের বন গবেষণা ও জলবায়ু পরিবর্তনের এই ঝুঁকি মোকাবেলায় গবেষণার জন্য ২০১৭ সালে এগ্রিকালচার ও ফরেস্ট্রিতে বিশ্ব সেরা বিশ্ববিদ্যালয় Wagenigen University & Research, The Netherlands এ পাড়ি জমান বাংলাদেশী কৃষি বিজ্ঞানী রাশেদ জামান। রাশেদ জামান ২০১৭ সালের আগষ্ট মাসে Wagenigen University এবং ABF fellowship এর যৌথ অর্থায়নে M.Sc in Forestry and Nature Conservation

প্রোগামে নেদারল্যান্ডস যান। বর্তমানে তিনি সুন্দরবনের কার্বন নিঃসরণ নিয়ে গবেষণা করছেন। বিভিন্ন সাইন্টিফিক সেমিনার, ওয়ার্কশপ ও ট্রেনিং প্রোগ্রামে অংশগ্রহণের জন্য ফ্রান্স, সুইজারল্যান্ড, চীনসহ বিশ্বের প্রায় ২০ টি দেশে ভ্রমণ করেছেন। ধারাবাহিক গবেষণা মেধা, মনন ও চেষ্টা দিয়ে রাশেদ জামান বিশ্ব সেরা অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে গবেষণা করার সুযোগ তৈরী করেন। তিনি University of Oxford এ Short time researcher হিসেবে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বিখ্যাত Wytham woods এর Geolab এ কাজ করবেন। রাশেদ জামান দিনাজপুরের হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়(হাবিপ্রবি) হতে কৃষি বিজ্ঞানে স্নাতক (সম্মান) এবং একই বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি বনায়ন বিভাগ হতে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। কর্মজীবনে তিনি হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের এসিস্ট্যান্ট রেজিস্ট্রারের দায়িত্বে রয়েছেন। রাশেদ জামানের বাসা উত্তরের জেলা পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জ উপজেলায়। তাঁর পিতা মোঃ আবু সাইদ মাহমুদ পেশায় ব্যবসায়ী ও কৃষিজীবী। তিনি ২০০৪ সালে বিজ্ঞান বিভাগে এস এস সি ও ২০০৬ সালে বিজ্ঞান বিভাগে এইচ এস সি পাশ করে হাবিপ্রবি’র কৃষি অনুষদে বি এস সি ইন এগ্রিকালচার কোর্সে ভর্তি হন। শৈশব থেকেই রাশেদ জামান ইউরোপের বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার স্বপ্ন দেখতেন। সেই স্বপ্নের সাথে অদম্য ইচ্ছা ও কঠোর পরিশ্রম রাশেদ জামানকে আজ এ পর্যায়ে এনেছে বলেই তিনি বিশ্বাস করেন। বিদেশের উচ্চশিক্ষা শেষে ফিরে রাশেদ জামান বন গবেষণা ও জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে কাজ করতে চান।

Facebook Comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here