মতামত/অভিযোগঃ  বে সরকারী ভাবে নিয়োগপ্রপ্ত এটেন্ডেন্টদের সন্ত্রাসী মূলক কর্মকান্ড প্রায় চোখে পড়ে।
ছবিতে যে মানুষ টিকে দেখছেন তার নাম সজীব। উনি কমলাপুর থেকে আজ সকালের পঞ্চগড় অভিমুখী একতায় উঠেন। উনার জীবনে আজকেই ছিল প্রথম ট্রেন যাত্রা। আর আজকেই উনি ট্রেনের এটেনডেন্ট এবং জি আর পি সদস্য দ্বারা নির্মম এবং পৈশাচিক নির্যাতনের শিকার হয়েছেন।

উনার অপরাধ ছিল উনি গাজীপুর যাবেন অথচ ট্রেনের সময় হয়ে যাওয়ায় টিকিট বিহীন অবস্থান ট্রেনে উঠেছেন। টিকিট বিহীন অবস্থায় ট্রেনে উঠার শাস্তি হচ্ছে ডাবল ভাড়া দিতে হয়। উনি সেটা দিয়েছেনও। কিন্তু উনার অপরাধ ছিল উনি রেলের পোষাক এবং আইডি ব্যাতিত ব্যাক্তির টিকিট চেক করায় উক্ত ব্যাক্তির ছবি তুলে ছিলেন এবং আমাদের কাছে পাঠিয়ে জানতে চেয়েছিলেন উনি কি রেলের লোক কিনা।

উনার ছবি তোলা চোখে পড়ে যায় গোলাপি পোশাকধারী পিশাচ দুই এটেন্ডেডদের চোখে। এই দুই শয়তান সজীব কে টেনে কোচে এক প্রান্তে নিয়ে গিয়ে বেধরক পেটায়। সাথে যোগ দেয় একজন রেল পুলিশ সদস্য। যার ফলাফল উনার শরীরে ক্ষত বিক্ষত।

যাইহোক ঘটনা এখানেই শেষ নয়। সজীব কে জয়দেবপুর স্টেশনে নামতে না দিয়ে আটকে রাখা হয়। ইতিমধ্যে সজীবের মোবাইল কেড়ে নেয়া হয়, মানিব্যাগ কেড়ে নেয়া হয়।

মারধর করে তাকে ভয়ভীতি দেখায় যে তাকে ফেন্সিডিল পাচারের মামলায় দেয়া হবে। তার মোবাইল এবং মানিব্যাগে থাকা ৩৫০০টাকা জোরপূর্বক রেখে তাকে ভয়ভীতি দেখিয়ে মোবাইলে ভিডিওর সামনে বলতে বাধ্য করা হয় যে সে তার সকল জিনিস সে বুঝে পেয়েছে। তার কাছ থেকে জোর পূর্বক সাদা কাগজে লিখিত নেয়া হয়।

এরপর একটি বিকাশ নম্বর তাকে দিয়ে এটেন্ডেন্ট বিপ্লব তাকে বলে দেয় তাকে ১০০০০ টাকা বিকাশ করে দিতে হবে নাইলে তাকে মারধরের ভিডিও ভাইরাল করে দেয়া হবে। এই বিপ্লব নামক পিশাচ টা সজীবের মানিব্যাগ থেকে সাড়ে ৩০০০ টাকা নিজ হাতে ছিনতাই করে।

অন্যদিকে জিসান নামের এটেন্ডেন্ট স্যামসাং গ্যালাক্সি J7 স্মার্টফোন টির দাবি না ছাড়লে মামলায় ঢুকিয়ে দেয়ার ভয়ভীতি দেখিয়ে ছিনতাই করে।

অতঃপর তাকে মহেড়া স্টেশনে নামিয়ে দেয়া হয়।

আমরা এই দুই কালপ্রিট এর দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি চাই। অপরাধীদের ১ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও আজীবন বহিঃষ্কারের আহবান করছি।

ইতিমধ্যেই কমলাপুর রেল থানায় পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা করার জন্য যাওয়া হয়েছিল। থানা থেকে অভিযোগ পত্র নিয়ে বাদীকে আগামীকাল আবার থানায় যেতে বলা হয়েছে।

আশাকরি দেশে এখনো আইন আছে। আইন অবশ্যিই এই ছিনতাইকারী দ্বয়ের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি দিবে।

এইভাবে অন্যায় মেনে নেয়া যাবে না। আজকে সজীব নির্যাতিত কাল আমি পরশু কিন্ত আপনি।

আসুন প্রতিবাদী হই।

বাংলাদেশ রেলওয়ে বেনেভোলেন্ট অফ নর্থ বেঙ্গল (বি.আর.বি.এন.বি) থেকে সংগৃহীত
Facebook Comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here